Showing posts with label অর্থনীতি. Show all posts
Showing posts with label অর্থনীতি. Show all posts

Sunday, October 15, 2017

বাংলাদেশে চালু হচ্ছে পে-পাল

বাংলাদেশে চালু হচ্ছে পে-পাল

আনোয়ার হোসেনঃ দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অবশেষে আগামী ১৯ অক্টোবর বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করছে অনলাইনে অর্থ স্থানান্তরের প্ল্যাটফর্ম পে-পাল।

সোমবার (৯ অক্টোবর) এ তথ্য নিশ্চিত করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক জানান, বাংলাদেশ আইসিটি এক্সপো ২০১৭–এর দ্বিতীয় দিন পে-পাল সেবা উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি-বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

প্রতিমন্ত্রী জানান, সোনালী, রূপালী ব্যাংকসহ নয়টি ব্যাংকের প্রায় ১২ হাজার শাখায় পে-পাল সেবা পাওয়া যাবে। বেশ কিছুদিন ধরেই পে-পাল কর্তৃপক্ষ বাজার যাচাইসহ নানা পরীক্ষা চালিয়েছে। সম্ভাবনাময় বাংলাদেশের কথা ভেবে বাংলাদেশে পুরোপুরি পে-পাল সেবা চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এর ফলে বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা উপকৃত হবেন। এছাড়া রেমিট্যান্স আসার হার বাড়বে। ডিজিটাল ট্রানজেকশন বাড়বে।

তিনি বলেন, ডিজিটাল লেনদেন, ক্যাশলেস সোসাইটির দিকে যাচ্ছি আমরা। ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের ক্ষেত্রে এ ধরনের সেবা চালু করা গুরুত্বপূর্ণ। আশা করছি এ সেবাটি চালুর ফলে ডিজিটাল বাংলাদেশের সফলতার পালকে আরেকটি মুকুট যুক্ত হবে।

পলক বলেন, ১৬ কোটি মানুষের দেশ আমাদের। এখানকার জনসংখ্যার বেশির ভাগ তরুণ। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন বিশ্বে প্রশংসিত। গুগল-ফেসবুকের অনেক সেবা তাই বাংলাদেশে আসছে। ফেসবুক বাংলাদেশে ১০ হাজার তরুণকে ডিজিটাল মার্কেটিং বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেবে। ২০২১ সাল নাগাদ তথ্যপ্রযুক্তিতে পাঁচ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয়ের লক্ষ্যমাত্রার পথে এগিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতিমূলক কাজের অংশ এগুলো।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের মে মাসে দেশে পরীক্ষামূলকভাবে পে-পালের সেবা (জুম) চালু করে সোনালী ব্যাংক। তবে শুরুতে এতে বৈদেশিক রেমিট্যান্স আহরণ ও বিতরণ কার্যক্রম চালুর কথা বলা হলেও ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিংয়ের অর্থ লেনদেনের সুবিধা ছিল না।

Tuesday, October 3, 2017

রেমিটেন্স প্রবাহে ভাটা

রেমিটেন্স প্রবাহে ভাটা

প্রবাসীদের পাঠানো বৈদেশিক মুদ্রার প্রবাহে ভাটা পড়েছে; মাসের হিসেবে এবার সাড়ে পাঁচ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন রেমিটেন্স এসেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, সদ্যসমাপ্ত সেপ্টেম্বর মাসে মাত্র ৮৫ কোটি ৩৭ লাখ ডলার পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।

এর আগে ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে ৯২ কোটি ৮৮ লাখ ডলার রেমিটেন্স এসেছিল।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র শুভঙ্কর সাহা বলেছেন, ঈদের পরের মাসে বরাবরই কম রেমিটেন্স পাঠান প্রবাসীরা। সেপ্টেম্বর মাসে সেটাই হয়েছে।

সেপ্টেম্বরে কম হলেও জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৪ দশমিক ৩৭ শতাংশ বেশি রেমিটেন্স এসেছে।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে ৩৩৮ কোটি ৭৮ লাখ ডলার রেমিটেন্স পাঠিয়েছিলেন প্রবাসীরা।

জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন কারণে বেশ কিছুদিন ধরে বাংলাদেশে রেমিটেন্স প্রবাহে ভাটা পড়েছিল। গত ২০১৬-১৭ অর্থবছরে আগের বছরের চেয়ে প্রায় ১৪ দশমিক ৪৮ শতাংশ রেমিটেন্স কম আসে।

বাংলাদেশ ব্যাংক সোমবার রেমিটেন্স সংক্রান্ত হালনাগাদ যে তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যায়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থানকারী প্রবাসীরা চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) ব্যাংকিং চ্যানেলে ৩৩৮ কোটি ৭৮ লাখ ডলার রেমিটেন্স পাঠিয়েছেন।
এর মধ্যে প্রথম মাস জুলাইয়ে এসেছে ১১৫ কোটি ৫৫ লাখ ডলার। দ্বিতীয় মাস অগাস্টে ১৪১ কোটি ৮৬ লাখ ডলার পাঠান প্রবাসীরা। সেপ্টেম্বরে পাঠিয়েছেন ৮৫ কোটি ৩৭ লাখ ডলার।

২০১৪-১৫ অর্থবছরে রেকর্ড পরিমাণ এক হাজার ৫৩১ কোটি ৬৯ লাখ (১৫.৩১ বিলিয়ন) ডলারের রেমিটেন্স বাংলাদেশে আসে।

এরপর প্রতিবছরই রেমিটেন্স কমেছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে আড়াই শতাংশ কমে রেমিটেন্স আসে ১ হাজার ৪৯৩ কোটি ডলার। গত অর্থবছরে তা সাড়ে ১৪ শতাংশ কমে আসে ১ হাজার ২৭৭ কোটি ডলার, যা ছিল আগের ছয় অর্থবছরের মধ্যে সর্বনিম্ন।

রেমিটেন্সের উৎস দেশগুলোতে অর্থনৈতিক মন্দা এবং মোবাইল ব্যাংকিংসহ অন্যান্য মাধ্যমে হুন্ডি প্রবণতা বৃদ্ধি পাওয়ায় বৈধপথে রেমিটেন্স কম আসছিল।

গত ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রায় পুরো সময় ধরে পড়তির দিকে থাকা রেমিটেন্স চলতি অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে (জুলাই-অগাস্ট) কিছুটা ঊর্ধ্বগতি লক্ষ্য করা যায়। কিন্তু সেপ্টেম্বরে ফের তা কমেছে।

দেশের অর্থনীতির অন্যতম প্রধান চালিকাশক্তি রেমিটেন্সের নিম্নগতি সরকারের নীতি-নির্ধারকদের কপালে ভাঁজ ফেলেছিল।

রেমিটেন্স বাড়াতে মাশুল না নেওয়াসহ নানা ঘোষণাও দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

সেপ্টেম্বরে ৮৫ কোটি ৩৭ লাখ  ডলার রেমিটেন্সের মধ্যে সরকারি ছয় বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ২১ কোটি ৫০ লাখ ডলার। দুটি বিশেষায়িত ব্যাংকের মাধ্যমে আসে ৮৫ লাখ ডলার।

৩৯টি বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিটেন্স এসেছে ৬২ কোটি ৬ লাখ ডলার। আর নয়টি বিদেশি ব্যাংকের মাধামে আসে ৯৫ লাখ ডলার।

বাংলাদেশের জিডিপিতে ১২ শতাংশ অবদান রাখে প্রবাসীদের পাঠানো এই বৈদেশিক মুদ্রা।

রেমিটেন্স কমে যাওয়ার অন্যতম কারণ হিসেবে বিদেশ থেকে অবৈধ পথে টাকা পাঠানোকে দায়ী করছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি।

অন্যদিকে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবের অর্থনীতির নাজুক অবস্থার কথা বলে আসছে আইএমএফ। সেখানে গিয়ে অনেকের বেকার হয়ে পড়ে থাকার খবরও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে আসছে।

দেশের রেমিটেন্সের অর্ধেকের বেশি আসে মধ্যপ্রাচ্যের ছয়টি দেশ- সৌদিআরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার, ওমান, কুয়েত ও বাহরাইন থেকে।

বিদ্যুতের দাম ৬.২৪% বাড়াতে চায় ডিপিডিসি

বিদ্যুতের দাম ৬.২৪% বাড়াতে চায় ডিপিডিসি

গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ৬ দশমিক ২৪ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি)

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) গণশুনানিতে অংশ নিয়ে সার্ভিস চার্জ ও ডিমান্ড চার্জও দ্বিগুণ করার প্রস্তাব করেছেন ডিপিডিসির পরিচালক গোলাম মোস্তফা।

বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর এই প্রস্তাব বরাবরের মতই ভোক্তা অধিকার প্রতিনিধিদের বিরোধিতার মুখে পড়েছে।

তবে বর্তমান হারে বিদ্যুৎ বিতরণে ডিপিডিসির প্রতি ইউনিটে ১৫ পয়সা রাজস্ব ঘাটতি রয়েছে জানিয়ে তা সমন্বয়ের পক্ষে মত দিয়েছে বিইআরসির কারিগরি মূল্যায়ন কমিটি।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ও নারায়ণগঞ্জ এলাকায় বিদ্যুৎ বিতরণের দায়িত্বে থাকা ডিপিডিসির মোট গ্রাহক সংখ্যা ৯ লাখ ৮৬ হাজার ১৭৬ জন।

এ কোম্পানির প্রস্তাবে বলা হয়, ইউনিট প্রতি ৭ টাকা ৫০ পয়সা সরবরাহ ব্যয়ের বিপরীতে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে তারা গ্রাহকের কাছ থেকে ৭ টাকা ৭ পয়সা করে নিয়েছে। ফলে ৪৩ পয়সা করে ঘাটতি থেকে যাচ্ছে। পাইকারি বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হলে এ ঘাটতি আরও বাড়বে।

এ পরিস্থিতিতে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের ট্যারিফ ৪৩ পয়সা বা ৬ দশমিক ২৪ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি।

এছাড়া আবাসিক সংযোগে ডিমান্ড চার্জ ১৫ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২৫ টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে। অন্যান্য শ্রেণির গ্রাহকের ক্ষেত্রেও সার্ভিস চার্জ বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে এ কোম্পানি।

বিইআরসি চেয়ারম্যান মনোয়ার ইসলাম সভাপতিত্বে এ শুনানিতে কনজ্যুমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) জ্বালানি উপদেষ্টা ড. এম শামসুল আলম, সিপিবি নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স, বিটিএমইএ প্রতিনিধি আবু বকর, ভোক্তা আমির হোসেন এবং বেশ কয়েকজন সাংবাদিক দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবের বিরোধিতা করেন।

বিইআরসির সদস্য মিজানুর রহমান, রহমান মুরশেদ, আবদুল আজিজ খান ও মাহমুদ উল হক ভূইয়াও শুনানিতে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে শুনানিতে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) বাল্ক বা পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ১৪ দশমিক ৭৮ শতাংশ এবং গ্রাহক পর্যায়ে ১৪ দশমিক ৫ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করে।

সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণে ইন্সটিটিউট করবে ইআরএফ

সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণে ইন্সটিটিউট করবে ইআরএফ

অনলাইনঃদেশে অর্থনীতি ও বাণিজ্য সাংবাদিকতার মান উন্নয়নে প্রশিক্ষণের আয়োজন করবে অর্থনৈতিক প্রতিবেদকদের সংগঠন ইকোনোমিক রিপোর্টার্স ফোরাম (ইআরএফ)।

এ লক্ষ্যে তারা প্রতিষ্ঠা করবে ইআরএফ ইনস্টিটিউট। নিজস্ব কার্যালয় ও ইনস্টিটিউটের জন্য রাজধানীর পল্টনে স্পেস কিনছে ইআরএফ।

এ বিষয়ে রোববার ডেভেলপার প্রতিষ্ঠান আবেদ হোল্ডিংসের সঙ্গে চুক্তি করেছে সাংবাদিকদের সংগঠনটি।

ইআরএফ সভাপতি সাইফুল ইসলাম দিলাল ও আবেদ হোল্ডিংসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু খালিদ মো. বরকত উল্লাহ চুক্তিতে সই করেন।

অনুষ্ঠানে ইআরএফের প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক শহীদুজ্জামান, প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক জাহিদ, সাবেক সভাপতি মনোয়ার হোসেন ও জাকারিয়া কাজল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল হাসান খান, সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান, সহ সাধারণ সম্পাদক রিজভী নেওয়াজ, অর্থ সম্পাদক এস এম রাশিদুল ইসলাম, দৈনিক সংবাদের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক কাশেম হুমায়ুন, একাত্তর টেলিভিশনের বিজনেস এডিটর কাজী আজিজুল ইসলাম মাখন বক্তব্য রাখেন।

এ সময় চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের নিউজ এডিটর হাসান ইমাম রুবেল, গাজী টিভির বিজনেস এডিটর রাজু আহমেদসহ সংগঠনের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে ইআরএফ সভাপতি সাইফ ইসলাম দিলাল বলেন, “আমাদের দীর্ঘ দিনের একটি স্বপ্ন ছিল একটি স্থায়ী অফিস। একই সঙ্গে আমাদের বর্তমান কমিটির একটি প্রতিশ্রুতিও ছিল অফিস করে দেওয়ার। সেই জায়গা থেকে সবার সহযোগিতায় এটিকে স্থায়ী রূপ দিতে চাই।”

সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান বলেন, “স্বপ্ন পূরণের পথে এক ধাপ এগিয়ে গেল আমাদের প্রিয় সংগঠন ইকোনোমিক রিপোর্টার্স ফোরাম (ইআরএফ)। এটি নিছক একটি অফিস হবে না, হবে প্রশিক্ষণ, দক্ষতা বৃদ্ধি ও উৎকর্ষ বাড়ানোর একটি অনন্য কেন্দ্র। আমাদের যৌথ চেষ্টায় ইআরএফ অফিস একদিন উন্নীত হবে ইআরএফ ইনস্টিটিউটে।”

আবেদ হোল্ডিংসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, অর্থনীতির বিকাশে অর্থনৈতিক প্রতিবেদকরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। দিন দিন এ ক্ষেত্রটি বড় হচ্ছে।

আগামী দিনে অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে ইআরএফ অনেক অবদান রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

Friday, September 15, 2017

বিকাশ’র ২৮৮৭টি এজেন্ট স্থগিত, ৮০ হাজার এজেন্টের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ

বিকাশ’র ২৮৮৭টি এজেন্ট স্থগিত, ৮০ হাজার এজেন্টের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ

ঢাকা : মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান বিকাশ-এর দুই হাজার ৮শ’ ৮৭ এজেন্ট স্থগিত করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। একইসঙ্গে একাধিক হিসাব থাকায় প্রায় ৮০ হাজার এজেন্টের বিরুদ্ধে ৩০ দিনের মধ্যে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর রাজি হাসান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

Thursday, August 31, 2017

নেত্রকোনায় ইউপি সদস্যদের নিয়ে বাজেটের স্বচ্ছতা উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রস্তুতকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা

নেত্রকোনায় ইউপি সদস্যদের নিয়ে বাজেটের স্বচ্ছতা উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রস্তুতকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা

সুজাদুল ইসলাম ফারাস: নেত্রকোনার বেসরকারী সংগঠন স্বাবলম্বী উন্নয়ন সমিতির উদ্যোগে গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় ঠাকুরাকোনা ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে ইউনিয়ন পরিষদের অন্তর্ভূক্তিমূলক ও স্বচ্ছ বাজেট প্রক্রিয়াকে গতিশীল করতে সুশীল সমাজ সংগঠনগুলোকে শক্তিশালী করণ (ইইউ-সিএসও এবং এলএ) প্রকল্পের আওতায় ‘ইউপি সদস্যদের নিয়ে বাজেটের স্বচ্ছতা উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রস্তুতকরণ’ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। ঠাকুরাকোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণ কর্মশালায় সহায়কের ভূমিকা পালন করেন স্বাবলম্বী উন্নয়ন সমিতির উন্নয়ন কর্মী আব্দুল লতিফ মোতাহার। সার্বিক সহযোগিতা করেন ইউপি সচিব মোঃ শফিকুল আলম।