Showing posts with label আন্তর্জাতিক. Show all posts
Showing posts with label আন্তর্জাতিক. Show all posts

Wednesday, March 14, 2018

১৪ বছরের বালকের আমেরিকার প্রথম মুসলিম প্রেসিডেন্ট হওয়ার স্বপ্ন

১৪ বছরের বালকের আমেরিকার প্রথম মুসলিম প্রেসিডেন্ট হওয়ার স্বপ্ন

১৩ মার্চ, বিবিসি : ১৪ বছরের বালক ইউসুফ দাউর। সে তার পরিবারের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটায় থাকে। সে তার ভবিষ্যতের ব্যাপারে একটি পরিকল্পনা তৈরি করেছে। তার লক্ষ্য, আমেরিকার প্রথম মুসলিম প্রেসিডেন্ট হওয়া। ইউসুফ দাউর বলেন, আমি টেলিভিশনের প্রেসিডেন্ট বুশের ছবি দিখেছি। তিনি জর্জ ডব্লিউ বুশের মতোই পোশাক পরতেন। তিনি হলেন রিপাবলিক রাজনৈতিক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মন্ত্রিসভার একজন সদস্য বেন কার্সন। তিনি বলেছিলেন, কোনো মুসলিম যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হতে পারবে না। এই জাতির জন্য আমি কখনো কোন মুসলিমকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেখেতে চাই না। ইউসুফ বলেন, তার এই কথা আমার মোটেও পছন্দ হয়নি, কারণ আমি তো প্রেসিডেন্ট হতে চাই। তিনি আমার স্বপ্ন গুড়িয়ে দিয়েছেন। তখন আমি মাকে বললাম আমার হোমওয়ার্ক করতে হবে তারপর আমি একটি ভিডিও বানাবো।

তারপর ইউসুফ বেন কার্সনের কথার জবাবে ২০১৫ সাথে প্রথম একটি ভিডিও তৈরি করি। সেখানে সে বলে- আমি হবো আমেরিকার প্রথম মুসলিম প্রেসিডেন্ট। এবং আপনি এটা নিজের চোখে দেখবেন।

তারপর এই ভিডিওটি ইউটিউবে ছড়িয়ে পড়লো। প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরিকল্পনা তুলে ধরতে ইউসুফ একটি ইউটিউব চ্যানেল চালু কারার সিদ্ধান্ত নিলো।

ইউসুফ বলে, আমি হাই স্কুলে পড়ালেখা শেষে কলেজে পড়তে চাই। অপরাধ বিজ্ঞান নিয়ে পড়তে চাই। তারপর ‘ল’ স্কুলে যেতে চাই। ‘ল’ স্কুল শেষ করে তারপর কয়েক বছর আমি স্থানিয় কিছু অফিস চালাতে চাই। তারপর রাজ্যে তারপর কেন্দ্রীয় পর্যায়ে তারপর প্রেসিডেন্ট।

ইউসুফ আরো বলেন, আপনি যদি কিছু বদলাতে চান, জনগণের সাথে কথা বলতে চান, তাহলে তাদেরকে সম্মান করতে হবে। আমার মনে হয় আমাদের এটার অভাব আছে, বিশেষ করে আজকের পৃথিবীর রাজনীতিতে।

তারপর সে তার আরেকটি ইউটিউব ভিডিও নিয়ে আসে, সেখানে সে বলে, আমি একজন প্রেসিডেন্টের জন্য অপেক্ষা করছি যিনি জাতি ও ধর্মের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করবে না। কৃষ্ণাঙ্গদের যে সীমা ছিলো ওবামা সেটা ভেঙেছেন। মুসলমানদের নিয়ে যে সীমা সেটা আমি ভাঙবো। তিনি আরো বলেন, আমরা সবাই আমেরিকান, আমরা সবাই সমান।

Saturday, September 23, 2017

দ.আফ্রিকায় বাংলাদেশের প্রস্তুতি ম্যাচ ড্র

দ.আফ্রিকায় বাংলাদেশের প্রস্তুতি ম্যাচ ড্র

অনলাইনঃ৭ উইকেটে ৩০৬ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেছিল বাংলাদেশ। জবাবে ৭ রানের লিড নিয়ে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ। ৮ উইকেটে তারা করে ৩১৩ রান। কিন্তু দ্বিতীয়বার ব্যাটিং প্রস্তুতিতে নেমে ভালো কিছু করতে পারেনি বাংলাদেশ। ইমরুল কায়েস ও সাব্বির রহমানের হাফসেঞ্চুরি বাদে আর কোনও ব্যাটসম্যান নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি। ৯ উইকেটে ২৩৫ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে সফরকারীরা। ২২৮ রানের লিড পায় বাংলাদেশ। কিন্তু শেষদিনের শেষ সেশনে দ্বিতীয় ইনিংসে আর ব্যাট করতে নামেনি স্বাগতিকরা। ম্যাচ হয়েছে ড্র।

তামিম ইকবাল বা সৌম্য সরকার কেউ ব্যাট করতে নামেননি। কোনও উইকেট না হারিয়ে দলীয় ৬ রানে শনিবারের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। ইমরুল কায়েসের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটিতে নামা লিটন দাস দিনের তৃতীয় ওভারে আউট হন। মাত্র ২ রানে টিলাদি বোকাকোর শিকার হন তিনি। ৫১ রানের ইনিংস খেলে আউট হন ইমরুল। মুমিনুল হকের সঙ্গে ৭১ রানের জুটি ছিল তার।

দলীয় ৫ রানের ব্যবধানে মুশফিকুর রহিম (৩) ও মুমিনুল (৩৩) শন ভন বার্গের শিকার হন। ৯৬ রানে চার উইকেট হারায় বাংলাদেশ, এই ধাক্কা তারা কাটিয়ে ওঠে মাহমুদউল্লাহ ও সাব্বিরের জুটিতে। যদিও রানের খাতা সমৃদ্ধ করতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ। ৫২ রানের জুটি গড়তে তিনি করেন মাত্র ১৫ রান। মেহেদী হাসান মিরাজ ১৪ রান করে আউট হন। ১৭৮ রানে ষষ্ঠ উইকেটটি হারায় সফরকারীরা।

সাব্বির ৬৭ বলে হাফসেঞ্চুরি করে প্রতিরোধ গড়লেও তাকে থামান ভন বার্গ। ৯৮ বলে ৮ চারে ৬৭ রানে বোল্ড হন তিনি। প্রথম ইনিংসেও হাফসেঞ্চুরি করেছিলেন সাব্বির। পরের ওভারে শফিউল ইসলাম রানের খাতা না খুলে বিদায় নেন। ভন বার্গের চতুর্থ শিকার হন তাইজুল (১৪)। তাসকিন আহমেদ ১৫ রানে অপরাজিত ছিলেন। শুভাশীষ রায় খেলছিলেন ৩ রানে। ৬৩ ওভার শেষ হওয়ার পর ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশ।

আজ ২৩ সেপ্টেম্বর | দিন-রাত সমান

আজ ২৩ সেপ্টেম্বর | দিন-রাত সমান

আজ ২৩শে সেপ্টেম্বর। সারা বিশ্বে দিন-রাত সমান। কিন্তু কেন প্রতি বছর এই দিনে এমনটা হয়। আসুন জেনে নিই।

আমাদের গোলার্ধে দিনটি ‘জল বিষুব’ বলে পরিচিত। বিষুব বছরের এমন একটি সময়, যখন দিন ও রাতের দৈর্ঘ্য সমান হয়।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, বছরের দু’টি দিনে এ রকম হয়ে থাকে। দিনগুলোতে সূর্য বিষুবরেখা বরাবর অবস্থান করে। জলবিষুব বা শারদীয় বিষুব হয়ে থাকে ২৩শে সেপ্টেম্বর।

অন্যদিকে মহাবিষুব বা বসন্ত বিষুব হয়ে থাকে ২১শে মার্চে। আমাদের গোলার্ধে আজ ‘জল বিষুব’।

এদিন সূর্য উত্তর আর দক্ষিণ অয়নান্তের মাঝামাঝি ঠিক বিষুব রেখা বরাবর কিরণ দেবে। ফলে পৃথিবীর সর্বত্র দিন-রাত্রি সমান থাকবে।

অন্যদিকে আগামীকাল থেকেই সূর্যের চারদিকে আপন কক্ষপথে পৃথিবীর পরিক্রমণের কারণে সূর্য দক্ষিণ গোলার্ধের দিকে সরে যেতে শুরু করবে। আবহাওয়াও উত্তরা বাতাসে শীত থেকে শীতার্ত হবে। ধীরে ধীরে দীর্ঘ হতে পরবর্তী রাতগুলি।

এছাড়া, ২০শে মার্চ সূর্য তার দক্ষিণ গোলার্ধের অবস্থান শেষ করে উত্তর গোলার্ধের দিকে যাত্রাকালে বাংলাদেশে রাতের শেষের দিকে বিষুবরেখার উপর অবস্থান নেয়। তাই পরদিন অর্থাৎ ২১শে মার্চ পৃথিবীর উভয় গোলার্ধের দিন ও রাতের দৈর্ঘ্য সমান হয়। এর নাম মহাবিষুব বা বসন্ত বিষুব।

২১শে মার্চের পর থেকে পৃথিবী তার কক্ষপথে সূর্যকে পরিক্রমণ করতে থাকায় সূর্য ধীরে ধীরে উল্টর গোলার্ধে সরে যায় এবং কর্কটক্রান্তি রেখা পর্যন্ত পৌঁছে আবার দক্ষিণে যাত্রা শুরু করে। বাসন্তিক বিষুবের সূর্য যখন উল্টর গোলার্ধে দেখা যাবে তখন দক্ষিণ মেরুতে দীর্ঘ ছয় মাসের জন্য নেমে আসবে রাত।

সূর্যের অবস্থান বিষুবরেখা ও এর সাড়ে ২৩ ডিগ্রি উত্তর ও দক্ষিণ বিন্দু পর্যন্ত সীমাবদ্ধ থাকায় পৃথিবীর মেরু অঞ্চলে সূর্যকে কখনো অস্ত যেতে দেখা যায় না। শুধু দিগন্ত বরাবর ঘুরতে দেখা যায়। সূর্যের এই বিভিন্ন অবস্থানের কারণে একই সময়ে একেক মহাদেশে ভিন্ন ঋতু অনুভূত হয়। সূর্য যতই উত্তর দিকে অগ্রসর হবে বাংলাদেশে ততোই বেশি গরম অনুভূত হবে।

আর দক্ষিণ গোলার্ধে বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়া ও আশপাশের দেশগুলোয় শীত অনুভূত হবে। আজ জল বিষুবের দিন থেকে সূর্য দক্ষিণ গোলার্ধের দিকে সরে যেতে শুরু করবে। ফলে বাংলাদেশের আবহাওয়া শীতার্ত হওয়া শুরু করবে।

Monday, September 18, 2017

আন্তর্জাতিক চাপ নয়, দ্বিপাক্ষিকভাবেই রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান | মিয়ানমার

আন্তর্জাতিক চাপ নয়, দ্বিপাক্ষিকভাবেই রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান | মিয়ানমার

নিউজ ডেস্ক : মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গাদের জন্য আসলো দারুন সুখবর। বাংলাদেশের সাথে রাখাইন সমস্যা সমাধান করতে চায় মিয়ানমার। তবে এই ক্ষেত্রে তাদের শর্ত হচ্ছে,  আন্তর্জাতিক চাপ নয়, বরং দ্বিপক্ষীয়ভাবে বাংলাদেশের সাথে রাখাইন সমস্যা সমাধান করতে চায় মিয়ানমার। তবে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক স্বাভাবিক রাখতে গণহত্যা চালানোর জন্য মিয়ানমারকে দোষারোপ করা থেকে বাংলাদেশের গণমাধ্যমকে বিরত রাখার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

মিয়ানমারে উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী কেও টিন সম্প্রতি নেপিডোতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সাথে বৈঠকে এ কথা জানান।

এ ব্যাপারে মিয়ানমার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আরাকান রোহিঙ্গা সালভেশন আর্মির (আরসা) চরমপন্থী বাঙ্গালী সন্ত্রাসবাদীদের হামলার পরিপ্রেক্ষিতে রাখাইনে সৃষ্ট অস্থিতিশীল পরিস্থিতি নিয়ে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সাথে মিয়ানমার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আলোচনা হয়েছে। এতে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি মোকাবেলায় আন্তর্জাতিক চাপের পরিবর্তে ধারাবাহিক দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। উভয়পক্ষ দ্বিপক্ষীয় আলোচনা আবারো শুরু করার ওপর জোর দিয়েছে।

এতে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই, তথ্য বিনিময়, সীমান্তে কমিউনিকেশন অফিস খোলা ও দুই দেশের মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক নিয়ে আলোচনা হয়।

কেও টিন বলেন, বাংলাদেশের কিছু সংবাদপত্র রাখাইন রাজ্যে বাঙ্গালীদের (রোহিঙ্গা) বিরুদ্ধে গণহত্যা চালানোর অভিযোগ আনছে। গণমাধ্যমের এ ধরনের লাগামহীন লেখার রাশ টেনে ধরতে হবে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষে। কেননা এটি দুই দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক ও সহযোগিতার ক্ষেত্রে অন্তরায়।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ দ্বিপক্ষীয়ভাবে মিয়ানমারের সাথে রাখাইন সংকট সমাধানের সব ধরনের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মাধ্যমে চাপ সৃষ্টি পন্থা অবলম্বন করছে। বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের ‘বাঙ্গালী’ হিসেবে উল্লেখ করার মিয়ানমারের প্রবণতার বারবার প্রতিবাদ জানিয়েছে। মিয়ানমারের হেলিকপ্টার ও ড্রোনের আকাশসীমা লঙ্ঘনের ঘটনার ব্যাপারে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে। ঢাকায় নিযুক্ত মিয়ানামারের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বেশ কয়েকবার তলব করে বাংলাদেশ আনুষ্ঠানিকাভাবে উস্কানিমূলক এসব কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ জানায়। কিন্তু মিয়ানমারকে কোনোভাবেই বিরত করা যায়নি।

Sunday, September 17, 2017

মিয়ানমারে নিষষেধাজ্ঞার হুমকি ইউরোপের

মিয়ানমারে নিষষেধাজ্ঞার হুমকি ইউরোপের

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ রোহিঙ্গা সঙ্কটের সমাধান না করলে মিয়ানমারের উপর অবরোধ আরোপের হুমকি দিয়েছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট।

মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সেনাবাহিনীর অভিযান নিয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের উদ্বেগ প্রকাশ এবং মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের আহ্বানের পর এই হুমকি এল।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টে বৃহস্পতিবার গৃহীত এক প্রস্তাবে ইউরোপীয় কমিশনের ভাইস প্রেসিডেন্টসহ সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে মিয়ানমারের উপর ক্রমেই চাপ বাড়াতে বলা হয়।

সেই সঙ্গে আসিয়ান জোট এবং চীনসহ প্রতিবেশী দেশগুলোকেও রোহিঙ্গা সঙ্কটের শান্তিপূর্ণ সমাধানে উদ্যোগী হতে আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট।

লাখ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আশ্রয় দেওয়ার জন্য বাংলাদেশের প্রশংসা করেছে ইউরোপের দেশগুলো।

গত ২৫ অগাস্ট সেনা ও পুলিশ চৌকিতে বিদ্রোহীদের হামলার পর রাখাইনে অভিযান চালাচ্ছে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী। এতে নির্বিচারে রোহিঙ্গাদের হত্যা, ধর্ষণ ও ঘর জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে পালিয়ে আসা শরণার্থীরা জানিয়েছেন।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টে গৃহীত প্রস্তাবে রাখাইনে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর মানবাধিকার লঙ্ঘনের তীব্র নিন্দা জানানো হয়। সেনা অভিযানে রোহিঙ্গা হত্যাকাণ্ড, নিপীড়ন এখনই বন্ধের আহ্বান জানানো হয়। রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্বের স্বীকৃতি দিতেও মিয়ানমারকে আহ্বান জানানো হয়।

রাখাইনে মানবাধিকার সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক আইন-কানুন লঙ্ঘনের ঘটনায় জাতিসংঘের তদন্তে সহযোগিতা করতে মিয়ানমার সরকারকে আহ্বান জানায় ইউরোপীয় পার্লামেন্ট।

বাংলাদেশ সীমান্তে পুঁতে রাখা সব স্থল মাইন সরিয়ে ফেলতেও মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয় প্রস্তাবে।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রস্তাবে মিয়ানমারকে বাধ্য করতে জাতিসংঘের মাধ্যমে উদ্যোগ নিতে ইউরোপীয় কমিশনকে সক্রিয় হতে বলা হয়। তাদের বলা হয়, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এক্ষেত্রে শাস্তিমূলক অবরোধ আরোপে তৈরি রয়েছে।

মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চিকে সতর্ক করে বলা হয়, মানবাধিকার রক্ষার সংগ্রামের জন্য ১৯৯০ সালে তাকে যে শাখারভ পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল, বর্তমান পরিস্থিতিতে ব্যর্থতার জন্য তা কেড়েও নেওয়া হতে পারে।

Saturday, September 16, 2017

বিশ্ব একাদশকে হারিয়ে ঘরের মাঠে ক্রিকেট ফেরাল পাকিস্তান

বিশ্ব একাদশকে হারিয়ে ঘরের মাঠে ক্রিকেট ফেরাল পাকিস্তান

মন্ডলঃ দীর্ঘ প্রতীক্ষা অবশেষে প্রশান্তি, বিশ্ব একাদশকে হারিয়ে ঘরের মাঠে ক্রিকেট ফেরাল পাকিস্তান। আইসিসির গড়া বিশ্ব একাদশকে হারিয়ে এরই মধ্যে নজর কেড়ে নিয়েছে টিম পাকিস্তান। ৩ ম্যাচ টি-২০ তে এরই মধ্যে সিরিজ জিতে নিয়েছে পাকিস্তান। শুক্রবার (১৫ সেপ্টেম্বর) লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ে রাত ৮ টায় শিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে পাকিস্তানের মুখোমুখি হয় বিশ্ব একাদশ।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে আহমেদ শেহজাদের ৫৫ বলে দুর্দান্ত ৮৯ রান এবং বাবর আজমের ৩০ বলে ৪৮ রানের উপর ভর করে ১৮৪ রান সংগ্রহ করে পাকিস্তান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে ১৫০ রানে সবকটি উইকেট হারায় বিশ্ব একাদশ।

প্রসঙ্গত, ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলংকার টিম বাসে বোমা হামলার ঘটনার পর থেকে কোনো টেস্ট খেলুড়ে দেশই পাকিস্তান সফরে রাজি হয়নি। ২০১৫ সালের মে মাসে বিশ্ব মোড়লদের চোখ রাঙানি উপেক্ষা করে পাকিস্তান সফরে যায় জিম্বাবুয়ে। এর পর আর কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ গড়ায়নি পাকিস্তানে। গত ১২ সেপ্টেম্বর আইসিসির বিশ্ব একাদশের মধ্য দিয়ে দেশটিয়ে ফিরল ক্রিকেট।দ

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
পাকিস্তান: ১৮৩/৪ (২০ ওভার) / টার্গেট ১৮৪
বিশ্ব একাদশ: ১৫০/৮ (২০ ওভার)

বিশ্ব একাদশের সম্ভাব্য একাদশ: ফাফ ডু প্লেসিস (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, হাশিম আমলা, জর্জ বেইলি (উইকেট রক্ষক), ডেভিড মিলার, থিসারা পেরেরা, ড্যারেন স্যামি, বেন কাটিং, স্যামুয়েল বদ্রি, মরনে মরকেল ও ইমরান তাহির।

পাকিস্তনের সম্ভাব্য একাদশ : সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক), আহমেদ শেহজাদ, ফাখর জামান, বাবর আজম, শোয়েব মালিক, ইমাদ ওয়াসিম, মোহাম্মদ নওয়াজ, শাদাব খান, উসমান খান, হাসান আলি ও রুম্মান রইস।

যুক্তরাষ্ট্রেরর সঙ্গে সামরিক শক্তির ভারসাম্য চায় উ.কোরিয়া

যুক্তরাষ্ট্রেরর সঙ্গে সামরিক শক্তির ভারসাম্য চায় উ.কোরিয়া

কেসিএনএঃ এক মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো জাপানের ওপর দিয়ে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর পর উত্তর কোরিয়া বলছে, তারা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সামরিক শক্তির ভারসাম্য চায়।

স্থানীয় সময় শনিবার উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনকে উদ্ধৃত করে রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি (কেসিএনএ) দেশটির এমন অবস্থানের কথা জানায় ।

শুক্রবার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের দপ্তর হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এইচ.আর. ম্যাকমাস্টার বলেন, উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ও পরমাণু কর্মসূচি যুক্তরাষ্ট্রের ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে দিচ্ছে।

ওই বক্তব্যের একদিন পর উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা বলেন, ‘আমাদের চূড়ান্ত লক্ষ্য হলো, প্রকৃত শক্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারসাম্য অর্জন করা যাতে দেশটির শাসকরা সামরিক বিকল্প নিয়ে কথা বলার সাহস না করতে পারে।’

কেসিএনএর প্রকাশিত কিছু ছবিতে দেখা যায়, উত্তর কোরিয়ার কয়েকজন কর্মকর্তার পাশে বসে একটি ঘূর্ণায়মান লঞ্চার থেকে ক্ষেপণাস্ত্র উড্ডয়নের দৃশ্য দেখছেন কিম জং উন।

উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা বলেন, ‘হোয়াসং-১২ (মধ্যমপাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র) এর লড়াইয়ের সামর্থ্য ও নির্ভরযোগ্যতা ভালোভাবে যাচাই করা হয়েছে।’ তিনি আরো বলেন, পরিপূর্ণ পারমাণবিক শক্তি অর্জনের শেষ পথে আছে তাঁর দেশ।

চুক্তি লংঘন করে আবারও সংঘর্ষ ভারত-পাক সীমান্তে

চুক্তি লংঘন করে আবারও সংঘর্ষ ভারত-পাক সীমান্তে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : নিয়ন্ত্রণ রেখায় আবারও সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করল পাকিস্তান৷ শুক্রবার মধ্য রাত থেকেই সীমান্তে ভারতীয় সেনা ছাউনি গুলি লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে থাকে পাক রেঞ্জার্সরা৷ অর্নিয়া সেক্টরে শুরু হয় দু’পক্ষের মধ্যে গুলির লড়াই৷ সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, শনিবার ভোর পর্যন্ত চলছে গুলির লড়াই৷ তবে কোন হতাহতের খবর আসেনি এখনও৷

শুক্রবার সকালে সীমান্তে ভারত-পাকিস্তান গুলি বিনিময়ে শহিদ হয়েছিলেন এক বিএসএফ জওয়ান৷ ঘটনাস্থল জম্মুর আর এস পুরার সেই অর্নিয়া সাব-সেক্টরে৷ বিএসএফ সূত্রে খবর, ভারতের সেনা ছাউনির দিকে লক্ষ্য করে হঠাত্ই গুলি চালাতে শুরু করেছিল পাকিস্তান৷ তখনই এক জওয়ানের মৃত্যু হয়৷ তাঁর নাম ক্যাপ্টেন বিজেন্দ্র বাহাদুর সিং৷ বুলেট তাঁর পেটে লাগে৷ তাঁকে হাসপাতালেও নিয়ে যাওয়া হয়৷ কিন্তু বাঁচানো যায়নি৷

অর্নিয়ার ৯ জওয়ানের দিকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়েছিল৷ হামলার জন্য পাকিস্তান মর্টার, অটোমেটিক ও ছোটো অস্ত্র ব্যবহার করেছে৷ জওয়ানরা সাহসের সঙ্গে হামলার মোকাবিলা করেন৷ এখনও সীমান্তে গুলি বিনিময় চলছে৷ আর এস পুরার অর্নিয়া সেক্টরের স্থানীয়দের সুরক্ষিত স্থানে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ প্রয়োজন মতো জরুরি পরিষেবার জন্য তৈরি আছে কর্তৃপক্ষ৷

রোহিঙ্গা ইস্যুতে অন্যান্য দেশকে হস্তক্ষেপ না করার আহ্বান রাশিয়ার

রোহিঙ্গা ইস্যুতে অন্যান্য দেশকে হস্তক্ষেপ না করার আহ্বান রাশিয়ার

বিশ্ব সংবাদঃ রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীনের পর এবার মিয়ানমারের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে রাশিয়া। দেশটি মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ না করতে অন্য দেশগুলোর প্রতি আহবান জানিয়েছে। গতকাল শুক্রবার রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নারী মুখপাত্র মারিয়া জাকারভ এই আহবান জানিয়েছেন।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, একটি সার্বভৌম দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করলে তা দেশটির ভেতরে ধর্মীয় সংঘাত সৃষ্টি করতে পারে। আমরা আন্ত:ধর্মীয় সংলাপের ওপর জোর দিচ্ছি। রাশিয়া জানিয়েছে, ঘর-বাড়ি ছাড়া মানুষদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার পদক্ষেপ নিচ্ছে।

সুত্রঃ স্পুটনিক ইন্টারন্যাশনাল।

Friday, September 15, 2017

বাংলাদেশ সিরিজের আগে দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই কোচ খুন | কারণ ধোঁয়াশা

বাংলাদেশ সিরিজের আগে দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই কোচ খুন | কারণ ধোঁয়াশা

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্দেশে টাইগারদের উড়াল দেওয়ার ১দিন আগে একটি অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটল দেশটিতে। দক্ষিণ আফ্রিকার প্রিটোরিয়ায় লাউডিয়াম ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার দুজন ক্রিকেট কোচের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে! মৃত কোচ দুজন হলেন গিভেন এনকোসি (২৪) ও চার্লসন মাসেকো (২৬)। তাদের মৃত্যুর কারণ নিয়ে এখনও ধোঁয়াশা রয়ে গেছে।  ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকার প্রধান নির্বাহী হারুন লরগাত এই ঘটনায় আনুষ্ঠানিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকায় অপরাধমূলক ঘটনা নতুন কিছু নয়। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কারণে মাঝেমধ্যেই আন্তর্জাতিক মিডিয়ার শিরোনাম হয় দেশটি। কোচ মৃত্যুর ঘটনা সম্পর্কে আন্তর্জাতিক মিডিয়া বলছে, উমর আসাদ নামে এক ব্যক্তি বৃহস্পতিবার সকালে স্টেডিয়ামের গোসলখানায় আহত ও মৃত ব্যক্তিদের সন্ধান পান। ওই কোচ দুজনের সাথে তিনি কাজ করতেন। লাশ দেখার পর সাথে সাথে তিনি নিরাপত্তারক্ষীদের বিষয়টি জানান।

প্রিটোরিয়া পুলিশের মুখপাত্র ক্যাপ্টেন অগাস্টিনা সেলেপে বলেছেন, 'আসাদ এই খবরটি স্টেডিয়ামের নিরাপত্তারক্ষীদের সাথে সাথে জানান।  তারা সকাল ৭টায় পুলিশে খবর দেয়।

প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্ট অনুসারে মাথায় গুরুতর আঘাতের ফলেই দুজনের মৃত্যু হয়েছে। '
জানা গেছে, মৃত এবং আহত ৪ জনই স্টেডিয়ামের আবাসিক বাসিন্দা। মৃতদেহ দুটি স্টেডিয়ামের গোসলখানায় পাওয়া গেলেও বাকি দুজনকে আবাসিক রুমে আহত অবস্থায় পাওয়া যায়। ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা ও নর্দার্ন ক্রিকেটের বিভিন্ন প্রোগ্রামে কাজ করতেন তাঁরা। দক্ষিণ আফ্রিকা পুলিশ এখনো মৃত্যুর কারণ খুঁজে বের করতে পারেনি। পুলিশ মৃত্যু ও আঘাতের কারণ খুঁজতে তদন্ত করছে বলে জানানো হয়েছে। জনসাধারণের কেউ এ ব্যাপারে কোনো তথ্য জানলে তা পুলিশকে জানাতে আহ্বান জানিয়েছে পুলিশ।

বাংলাদেশ সিরিজের আগে দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই কোচ খুন | কারণ ধোঁয়াশা

বাংলাদেশ সিরিজের আগে দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই কোচ খুন | কারণ ধোঁয়াশা

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্দেশে টাইগারদের উড়াল দেওয়ার ১দিন আগে একটি অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটল দেশটিতে। দক্ষিণ আফ্রিকার প্রিটোরিয়ায় লাউডিয়াম ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার দুজন ক্রিকেট কোচের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে! মৃত কোচ দুজন হলেন গিভেন এনকোসি (২৪) ও চার্লসন মাসেকো (২৬)। তাদের মৃত্যুর কারণ নিয়ে এখনও ধোঁয়াশা রয়ে গেছে।  ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকার প্রধান নির্বাহী হারুন লরগাত এই ঘটনায় আনুষ্ঠানিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকায় অপরাধমূলক ঘটনা নতুন কিছু নয়। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কারণে মাঝেমধ্যেই আন্তর্জাতিক মিডিয়ার শিরোনাম হয় দেশটি। কোচ মৃত্যুর ঘটনা সম্পর্কে আন্তর্জাতিক মিডিয়া বলছে, উমর আসাদ নামে এক ব্যক্তি বৃহস্পতিবার সকালে স্টেডিয়ামের গোসলখানায় আহত ও মৃত ব্যক্তিদের সন্ধান পান। ওই কোচ দুজনের সাথে তিনি কাজ করতেন। লাশ দেখার পর সাথে সাথে তিনি নিরাপত্তারক্ষীদের বিষয়টি জানান।

প্রিটোরিয়া পুলিশের মুখপাত্র ক্যাপ্টেন অগাস্টিনা সেলেপে বলেছেন, 'আসাদ এই খবরটি স্টেডিয়ামের নিরাপত্তারক্ষীদের সাথে সাথে জানান।  তারা সকাল ৭টায় পুলিশে খবর দেয়।

প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্ট অনুসারে মাথায় গুরুতর আঘাতের ফলেই দুজনের মৃত্যু হয়েছে। '
জানা গেছে, মৃত এবং আহত ৪ জনই স্টেডিয়ামের আবাসিক বাসিন্দা। মৃতদেহ দুটি স্টেডিয়ামের গোসলখানায় পাওয়া গেলেও বাকি দুজনকে আবাসিক রুমে আহত অবস্থায় পাওয়া যায়। ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা ও নর্দার্ন ক্রিকেটের বিভিন্ন প্রোগ্রামে কাজ করতেন তাঁরা। দক্ষিণ আফ্রিকা পুলিশ এখনো মৃত্যুর কারণ খুঁজে বের করতে পারেনি। পুলিশ মৃত্যু ও আঘাতের কারণ খুঁজতে তদন্ত করছে বলে জানানো হয়েছে। জনসাধারণের কেউ এ ব্যাপারে কোনো তথ্য জানলে তা পুলিশকে জানাতে আহ্বান জানিয়েছে পুলিশ।

৫৩ টন ত্রান দিচ্ছে ভারত

৫৩ টন ত্রান দিচ্ছে ভারত

রোহিঙ্গাদের জন্য ৫৩ টন ত্রাণ পাঠিয়েছে ভারত। এর মধ্যে চাল, ডাল, দুধসহ বিভিন্ন সামগ্রী রয়েছে। এর আগে মরক্কো থেকে রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ পাঠানো হয়। সন্ধ্যা সাতটার দিকে ইন্দোনেশিয়া থেকে আরও দুটি ত্রাণবাহী কার্গো বিমান আসবে।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা একটা ১১ মিনিটের দিকে ভারতের ত্রাণবাহী উড়োজাহাজটি এসে পৌঁছায়। চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কাছে ত্রাণ হস্তান্তর করা হবে। সেখানে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রীংলাও রয়েছেন।

এর আগে সকালে মরক্কো থেকে রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণবাহী একটি কার্গো বিমান এসে পৌঁছায়। বিমানটিতে ১৪ টন ত্রাণ ছিল। এগুলোর মধ্যে তাঁবু, কম্বল, ওষুধ, শিশুখাদ্য, ম্যাট্রেস এবং চাল রয়েছে।

বিমানবন্দরে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) মো. হাবিবুর রহমান মরক্কো থেকে আসা ত্রাণ গ্রহণ করেন। সেগুলো কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো হবে।

হাবিবুর রহমান আরও জানান, সন্ধ্যা সাতটার দিকে রোহিঙ্গাদের জন্য ইন্দোনেশিয়ার আরও দুটি ত্রাণবাহী কার্গো বিমান আসবে। আগামীকাল শুক্রবার ইন্দোনেশিয়া থেকে আরও দুটি ও ভারত থেকে আরও একটি ত্রাণবাহী উড়োজাহাজ আসবে।